• ‘এক বছরের মধ্যেই একের দেহে অন্যের মাথা লাগিয়ে দেয়া সম্ভব হবে!’

    আগামী এক বছরের মধ্যে মস্তিষ্ক প্রতিস্থাপন সম্ভব হবে বলে ধারণা ব্যক্ত করেছেন ইতালির নিউরো সার্জন সের্গেই কানাভেরো। অর্থাৎ একের দেহে অন্যের মাথা লাগিয়ে দেয়া যাবে। গবেষণা নিবন্ধে এ ধারণা প্রকাশ করার পর চিকিৎসা বিজ্ঞান মহলে প্রচণ্ড আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।

    ইতালির নিউরো সার্জন সের্গেই কানাভেরো
    এক জনের শরীরে অন্য জনের মাথা বসিয়ে দেয়া যাবে বলে ঘোষণা দিয়ে গত বছরই বিশ্বজুড়ে খবরের শিরোনামে উঠে এসেছিলেন তিনি। তবে সে কাজটি এত সত্বর করা সম্ভব হবে এমন কোনো আভাস তখন দেয়া হয় নি।

    একটি কুকুরের পুরোপুরি ভেঙ্গে যাওয়া শিরদাঁড়া জোড়া দিতে সক্ষম হয়েছেন বলে গবেষণা নিবন্ধে দাবি করেছেন তিনি। এ নিয়ে একটি ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, চারপায়েই হাঁটতে এবং ল্যাজ নাড়তে পারছে কুকুরটি।

    সার্জিক্যাল জার্নাল নিউরোলজি ইন্টারন্যাশনালে গত সোমবার এ গবেষণা নিবন্ধ প্রকাশ করেন কানাভেরো। কুকুরটির বিধ্বস্ত শিরদাঁড়া সারিয়ে তুলতে যে চিকিৎসা পদ্ধতি এবং প্রযুক্তি ব্যবহার প্রয়োগ করা হয়েছে তার বিশদ বিবরণ এতে দিয়েছেন তিনি। আর এর ভিত্তিতেই একের দেহে অন্যের মাথা বসানো সম্ভব হবে বলে দাবি করেছেন তিনি। আগামী বছরই এমনটি সম্ভব হবে বলে ধারণা ব্যক্ত করেন তিনি। একজনে দেহে অন্যের মাথা বসিয়ে দেযার এ প্রক্রিয়াকে পুরো দেহ প্রতিস্থাপনও বলা হয়।

    অবশ্য কানাভেরোর চিকিৎসা প্রযুক্তি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন অনেক বিশেষজ্ঞ। কানাভেরোর প্রকাশিত নিবন্ধের ভিত্তিতে মন্তব্য করেছেন ওয়েস্টার্ন রিজার্ভ ইউনিভার্সিটির স্নায়ু-বিজ্ঞানী জেরি সিলভার। তিনি বলেন, এ গবেষণার ভিত্তিতে মানুষের মস্তিষ্ক প্রতিস্থাপনের কাজ শুরু করা যায় না। তিনি আরো বলেন, ভিডিওতে যে কুকুর দেখানো হয়েছে তার দেহ বদল করা হয় নি বরং বিধ্বস্ত শিরদাঁড়া মেরামত করা হয়েছে।

    অবশ্য পুরো দেহ প্রতিস্থাপনের কথা কেবল কানাভেরোই বলেন নি। এ নিয়ে কথা বলেছেন, চীনের হারবিন মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটির অর্থোপেডিক সার্জন ড. শিয়াওপিং রেন। মস্তিষ্ক প্রতিস্থাপনের জন্য একটি টিমও গড়ে তুলছেন বলে এর আগে জানিয়েছিলেন তিনি।

    Comments

    comments

    No Comments

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    15 − 11 =