• পাঁচ বছরের মেয়ের বিয়ের আবদার, তারপর…

    ‘মা আমি বিয়ে করতে চাই।’ সম্ভাব্য মৃত্যুর সামনে দাঁড়িয়ে এই আবদার পাঁচ বছরের শিশুকন্যা সোফিয়ার। মেয়ের সেই ইচ্ছে পূরণ করলেন ক্রিস্টি। নববধূ সাজল সোফিয়া। ব্রিটেনের মেরিডেন শহরের এক করুণ কাহিনী। বছর পাঁচেক আগে শহরের বাসিন্দা ক্রিস্টি সামরেস্টের কোলে জন্ম নিয়েছিল সোফিয়া। জন্মের পর থেকেই এক জটিল রোগে ভোগছে সে। দীর্ঘ পাঁচ বছর থেকে যে সে বেঁচে আছে, তাও চিকিৎসকদের কাছে যেন অলৌকিক। এ ব্যাপারে ক্রিস্টি জানান, সোফিয়ার হৃদযন্ত্রে মারাত্মক জটিলতা রয়েছে। ডাক্তাররা জানিয়েছেন, সোফিয়া কোনও দিনই সুস্থ হবে না। যতদিন বেঁচে থাকবে ততদিনই তাকে ধারাবাহিক অস্ত্রোপচারের মুখোমুখি হতে হবে। চিকিৎসকরা এ ব্যাপারে ডেইলি মেল সংবাদ মাধ্যমকে জানান, সোফিয়ার জন্ম হয়েছিল জেনেটিক হার্ট প্রোবলেম নিয়ে। তাঁর হৃদযন্ত্রের অর্ধেকটাই নেই। ডানদিকের অংশটা না থাকায় জন্মের পর থেকে এখন পর্যন্ত তিনবার তাঁর ওপেন হার্ট সার্জারি করা হয়েছে। চলতি মাসেই চতুর্থবার ওপেন হার্ট সার্জারি হবে। ডাক্তাররা বলছেন এ ধরণের ‘ক্রোমজমাল ডিসঅর্ডার’ নিয়ে একটি মানুষ বেঁচে থাকতে পারে না। সোফিয়া চমৎকার ছাড়া আর কিছুই নয়।

    নভেম্বর মাসের শেষের দিকেই হবে সোফিয়ার চতুর্থ অপারেশন। সেই জটিল অপারেশনের পর সোফিয়া বাঁচবে কিনা তার নিশ্চয়তা নেই। মৃত্যু সমসময়ই যেন তার ছায়াসংগী। তাই এই মুহূর্তে সোফিয়ার পরিবার তাঁর সব ইচ্ছে পূরণ করতে আপ্রাণ প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছেন। কয়েকদিন আগে সোফিয়া তাঁর মাকে বলে, ‘মা আমি বিয়ে করতে চাই।’ সে তাঁর ছয় বছরের বেস্ট ফ্রেন্ড হান্টারকে বিয়ে করতে চায় বলে জানানোর পর থেকেই শুরু হয় তোরজোর। মেয়ের ইচ্ছে পূরণের জন্য ক্রিস্টি বিষয়টি নিয়ে হান্টারের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন। প্রস্তাবে সাড়া দেন হান্টারের পরিবারের সদস্যরা। যেহেতু বাল্যবিবাহ অপরাধ তাই দুটি পরিবার মিলে আয়োজন করেন এক বিশেষ ওয়েডিং ফটো শ্যুট সেশন। হান্টার স্যুট পরে আর সাদা গাউন গায় জড়িয়ে নববধূ সাজে সোফিয়া।

    স্থানীয় একটি পার্কে এই ফটো শ্যুট করা হয়। সোফিয়া-হান্টারের এই ফটো সোশ্যাল মাধ্যমে প্রকাশিত করার পর তা ভাইর‍্যাল হয়ে যায় গোটা দুনিয়ায়। একই সঙ্গে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ সোফিয়ার দীর্ঘায়ু কামনা করছেন। অনেকে এগিয়ে এসেছেন আর্থিক সহায়তার জন্যও। ক্রিস্টি এ ব্যাপারে বলেন, ‘আশা করছি সোফিয়া দীর্ঘজীবী হবে। আর যখন তাঁর বয়স ২৫ হবে তখন সে যেন হান্টারকে বিয়ে করতে পারে। সোফিয়া হাসি-খুশি, সুস্থ জীবন লাভ করুক।’ এদিকে, হান্টারের মা ট্রেসি বলেছেন, ‘আমি সোফিয়ার খুশির জন্য সাধ্যমত সব ধরণের চেষ্টা করছি। শুধু মেয়েটা দীর্ঘজীবী হোক। বেঁচে থাকুক। ঈশ্বরের কাছে এই কামনা করছি।’

    Comments

    comments

    No Comments

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    14 + thirteen =