• ?????: বিনদোন ও ফ্যাশান

    ‘বুড়ি’ বলায় রেগে গেলেন জয়া!

    উইকিপিডিয়া বলছে, অভিনেত্রী জয়া আহসানের বয়স নাকি ৪৬ বছর। একথা শুনে কি চমকে গেলেন? ঠিক একইভাবেই আমার, আপনার মতোই বিষয়টা জেনে চমকে গিয়েছিলেন জয়াও। তবে সমস্যাটা নতুন নয়, বেশ কয়েক বছর আগের। বেশ কয়েক বছর আগে থেকেই জয়ার বয়স সম্পর্কে ভুল তথ্যই দিয়ে এসেছে উইকিপিডিয়া। এর পিছনে বেশকিছুই সিনিয়ার অভিনেত্রীও রয়েছেন বলে দাবি অভিনেত্রী।

    তার আরও অভিযোগ, শুধু বয়সই নয়, তার বাড়ির ঠিকানা, তার ভাই-বোন সবকিছু সম্পর্কেই ভুল তথ্য রটানো হচ্ছে বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী জয়া। একটু মজা করেই বলেছেন ৪৬ বছর আগে আমার বাবা-মা বিয়ে কেন দেখাও হয়নি।

    সোশ্যাল সাইটে লম্বা পোস্টে জয়া নিজের ফেসবুক পোস্টে ক্ষোভ উগরে দিয়ে লিখেছেন, তবে ইদানিং ২/১ টি বিষয় আমাকে কিছুটা ভাবিয়ে তুলেছে। বিশেষ করে ইদানিং বেশ কয়েকজন বিভিন্ন পত্রপত্রিকা/ উইকিপিডিয়ার তথ্যসূত্র টেনে আমার বয়স নিয়েও বেশ চর্চা করছেন। বলা হচ্ছে, আমার বয়স নাকি ৪৬ ! গুজব-গুঞ্জন আমি বরাবরই খাবারের লবনের মত উপভোগ করে গিয়েছি। দু-একজন সমবয়সী কিংবা আমার চেয়ে বয়সে বড় শ্রদ্ধাভাজন সহকর্মী (বিশেষ করে বেশ কয়েকজন অভিনেত্রী) গণমাধ্যমে নিজেদের অধিকার মনে করে আমার বয়স (ভুল তথ্য) নিয়ে চর্চা করেছে-বিষয়টি মজার। তাই এতদিন উপভোগ করেই গিয়েছি। তবে খুব সম্ভবত আমার চুপ থাকাটাকে অনেকে ‘মৌনতা সম্মতির লক্ষণ’ হিসেবে ধরে নিয়েছেন। নিন্দুকেরাও ‘অস্ত্র’ হিসেবে আমার বয়সের ভুল তথ্য প্রচার করে আনন্দ পাচ্ছেন। জয়ার অবশ্য সাফ বক্তব্য বয়স নয়, একজন শিল্পীর পরিচয় হওয়া উচিত তার কাজে। সূত্র: জি নিউজ।

    বলিউডে পুরুষরা বেশি নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে: সোনাক্ষী

    বর্তমানে বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের মধ্যে সোনাক্ষী সিনহা অন্যতম। তবে অভিনয় ছাড়া সোজাসুজি কথা বলে তিনি বেশি আলোচিত। আর ট্রেন্ডিং টপিক হলে তো চালিয়ে খেলাই তার পছন্দ। আর সম্প্রতি সেই নমুনা আরও একবার দেখালেন এই বলিউড অভিনেত্রী।

    সোনাক্ষীকে এক সাক্ষাৎকারে বলিউডের ‘ক্যাট ফাইট’ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি পাল্টা প্রশ্ন করেন, এ ধরনের প্রশ্ন শুধু মেয়েদেরই করা হয় কেন? সোনাক্ষী শেয়ার করেছেন বলিউডের ভেতরের কথা।

    তার দাবি, বলিউডে পুরুষরা অনেক বেশি নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন। ফলে তারা নাকি অনেক বেশি গসিপ করেন। এমনকি কখনও কখনও পুরুষদের গসিপ মেয়েদেরকেও নাকি হার মানায়! সোনাক্ষীর এই কথায় নতুন জল্পনা শুরু হয়েছে বলিউডে।

    এ ব্যাপারে অনেকই বলছেন, পুরুষ হোক বা নারী, গসিপ সবাই করেন। তবে পুরুষরা নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন, এমন মন্তব্য নিয়ে আপত্তি তৈরি হয়েছে বিভিন্ন মহলে। সেই বিতর্কে অবশ্য মোটেই কান দিচ্ছেন না সোনাক্ষী।

    স্বামী-সংসার দুটোই চাই, এই ডিভোর্স মানি না

    শাকিব খানের ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত মানেন না জানিয়ে চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস বলেছেন, মামলা না করে তিনি স্বামী এবং সুংসার দুটোই চান।

    অপু বিশ্বাস সাংবাদিকদের জানান, আমি স্বামী, সংসার দুটোই চাই। তাই যতক্ষণ পর্যন্ত সমঝোতার মাধ্যমে সমাধানের পথ থাকবে ততক্ষণ আইনের দ্বারস্থ হব না। এক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপও কামনা করেছেন এই অভিনেত্রী।

    অপু বলেন, আজকে আমি অপু বিশ্বাস বাংলাদেশে একটা পরিচিত মুখ। আমার সাথে আমার ঘরে অবিচার হচ্ছে, তাহলে অন্য সাধারণ নারীরা, যারা অপু বিশ্বাস না, তাদের কী অবস্থা হচ্ছে ভাবুন একবার। এজন্যই আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চাই।

    অপু বিশ্বাস ধর্মান্তরিত হয়ে অপু বিশ্বাস থেকে অপু ইসলাম খান নাম ধারণ করেন। কিন্তু তারপরেও সবখানে কেন বিশ্বাস ব্যবহৃত হচ্ছে-শাকিবের এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে অপু বলেন, আমার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, পাসপোর্ট থেকে শুরু করে সব জায়গায় ‘অপু বিশ্বাস’ নাম রয়ে গেছে। এসব বদলাতেতো সময়ের দরকার। শাকিব আমার সঙ্গে কথা সব ঠিক করলে এসব ক্ষেত্রে আর কোনো সমস্যা হবার কথা ছিল না।

    এখন সব ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে শাকিব ও জয়কে নিয়ে সুখে শান্তিতে বসবাস করতে চাই।
    তিনি বলেছেন, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সমস্যা হতেই পারে। তাই বলে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে সে আমাকে ডিভোর্স লেটার পাঠাবে তা ভাবতেও আমার ঘৃণা হচ্ছে। এই ঘৃণা থেকেই ডিভোর্স লেটারটি খুলে দেখার মানসিকতা আমি হারিয়ে ফেলেছি।

    অপু বলেন, শাকিব এমন একটি ন্যক্কারজনক কাজ করবে স্বপ্নেও ভাবিনি। এটি নিয়ে আমি আমার আইনজীবীর কাছে যাব। আইনিভাবে যা হওয়ার তাই হবে।

    এ নিয়ে ভারতের হায়দরাবাদে ‘নোলক’ ছবির শুটিংয়ে থাকা শাকিব খান বলেন, আমি কেন এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি দেশের মানুষের কাছে তা এখন পরিষ্কার। যদি তার সঙ্গে স্বেচ্ছাচারিতা করতাম বা খেয়াল-খুশি মতো তাকে ডিভোর্স দিতে চাইতাম তাহলে অনেক আগেই তা করতাম। অপুর বিষয়ে যা করার তা করে ফেলেছি। এখন আর এ বিষয় নিয়ে কোনো কথা বলতে চাই না।

    দীপিকার পর বানসালীর মাথার দামও ১০ কোটি টাকা

    কিছুদিন আগে পদ্মাবতীর অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনের মাথা কাটালে তাকে ৫ কোটি টাকা পুরস্কার দেবেন বলে ঘোষণা করেন হরিয়ানার বিজেপি নেতা সুরজ পাল আমু। এবার পদ্মাবতীর পরিচালক সঞ্জয়লীলা বানসালীর মাথা কাটলে আরও ৫ কোটি টাকা পুরস্কার দেওয়া হবে জানালেন তিনি।

    শুধু তাই নয়, যিনি এই কাজ করবেন তার পরিবারের সব দায়িত্ব তিনি নেবেন বলে জানিয়েছেন হরিয়ানা বিজেপির এই মুখপাত্র। করনি সেনার আন্দোলনের পাশে দাঁড়িয়ে এই বিজেপি নেতা বলেছেন, দিপীকার নাক কাটার যে হুমকি করনি সেনা দিয়েছে তাকে তিনি সমর্থন করেন। এখানেই থামেনি এই বিজেপি নেতার হুমকি। ছবিতে আলাউদ্দিন খিলজির ভূমিকায় অভিনয় করা রণবীর সিংয়ের হাত পা মেরে ভেঙে দেবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

    গত কয়েকমাস ধরে পদ্মাবতী নিয়ে চরমে উঠেছে করনি সেনার আন্দোলন। পরিস্থিতি এতটাই উদ্বেগজনক হয়েছে যে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজেকে এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে হয়েছে। বসুন্ধরা রাজে নিজে কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী স্মৃতি ইরানিকে চিঠি লিখে পদ্মাবতীর রিলিজের বিষয়টি বিশেষ নজরে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন।

    ‘আমার নামে এটি আসলে একটি হাস্যকর মামলা’

    ঢালিউড পাড়ার সাম্প্রতিক আলোচিত বিষয় শাকিব খানের বিরুদ্ধে মামলা। হবিগঞ্জের রাজমিস্ত্রি ইজাজুল মিয়ার দায়ের করা ৫০ লাখ টাকার এই মামলায় অবশ্য আরও দু’জন আসামী রয়ছেন। এরা হলেন ‘রাজনীতি ছবির নির্মাতা বুলবুল বিশ্বাস ও ছবির প্রযোজক। তবে সুপারস্টার শাকিবের নাম থাকার ফলে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে দেশীয় গণমাধ্যমের গণ্ডি পেরিয়ে বিদেশের গণমাধ্যমেও। দু’দিন আগেই জানা গিয়েছিলো এই মামলার বিষয়ে শাকিব কথা বলবেন।

    শনিবার (৪ নভেম্বর) দুপুরে শাকিব মেট্রোসেম সিমেন্ট আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেন। সেখানে প্রসঙ্গক্রমে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শাকিব বলেন, আমি দেশের বাইরে থাকা অবস্থায় এ বিষয়ে কিছুটা শুনেছিলাম। এরপর বেশ কিছু আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও সংবাদ হয়েছে, সেখান থেকে জেনেছি। এটি আসলে একটি হাস্যকর মামলা। আমি আইনের ছাত্র হলে হয়তো মামলাটি কোন গ্র্যাউন্ডে হয়েছে সেটা ভালো বলতে পারতাম।

    শাকিব আরও বলেন, একজন শিল্পী হিসেবে আমি শুধু আমার সংলাপ বলেছি। এটা কার নম্বর সেটা আমার দেখার বিষয় না। মামলার বিষয়টি পরিচালক, প্রযোজক বা যিনি সংলাপ লিখেছেন তারা দেখবেন।

    উল্লেখ্য, ‘রাজনীতি’ ছবির একটি সংলাপে শাকিব খান একটি মোবাইল নম্বর বলেন। সেই নম্বরটি মূলত ইজাজুল মিয়ার। ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পর তার নম্বরে কল যেতে থাকে এবং শাকিবের খোঁজ করতে থাকেন মানুষ। এর ফলে ব্যাপক হয়রানির শিকার হন ইজাজুল। তার সাংসারিক জীবনেও নাকি এর প্রভাব পড়ে। তাই তিনি মামলা দায়ের করেন।

    মা হলেন এশা দেওল

    বলিউড অভিনেত্রী এশা দেওল মা হয়েছেন। সোমবার সকালে হিন্দুজা হাসপাতালে কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন তিনি। সন্তান এবং মা দুজনেই এখন সুস্থ রয়েছেন।

    বাবা হওয়ার খুশিতে নিজের অনুভূতিও ভালো করে প্রকাশ করতে পারছেন না ভরত তখতানি। তিনি বলেন, ঠিক কতটা খুশি, তা বলে প্রকাশ করতে পারব না। যখন আমার সন্তান হাসছে, তখন মনে হচ্ছে একেবারে আমার মতো দেখতে হয়েছে।

    গর্ভবতী থাকার সময়ে ভক্তদের উদ্দেশ্যে প্রায়ই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি পোস্ট করেছেন ‘ধুম’ ছবির এই নায়িকা। ভক্তরাও তাকে শুভকামনা জানিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

    স্কুলে পড়ার সময় থেকেই বন্ধুত্ব ছিল এশা দেওল ও ভরত তখতানির। পরবর্তীতে ‘টেল মি’ ছবির শুটিংয়ে এশার সঙ্গে তখতানির সম্পর্কটা ঘনিষ্ঠতায় রূপ নেয়।

    বেশ কিছুদিন প্রেম করার পর ব্যবসায়ী ভরত তখতানিকে ২০১২ সালের ২৯ জুন বিয়ে করেন হেমা মালিনি কন্যা এশা দেওল। চলতি বছরের এপ্রিলে অন্তঃসত্ত্বা হবার সুখবর সবাইকে জানান এশা।

    এদিকে এশার মা হওয়ার খবরে আনন্দের বন্যা বইছে হেমা মালিনী ও ধর্মেন্দ্র পরিবারে। তবে দাদু-দিদা হওয়া ধর্মেন্দ্র-হেমার কাছে নতুন নয়।
    ২০১৫-এর জুন মাসে তাদের ছোট মেয়ে অহনা পুত্রসন্তানের জন্ম দেন। এশা দেওল ধর্মেন্দ্র ও হেমা মালিনির বড় মেয়ে। এবার এশার সন্তানকে নিয়ে আনন্দে মেতেছেন ধর্মেন্দ্র পরিবার।

    না ফেরার দেশে রানী মুখার্জির বাবা

    না ফেরার দেশে চলে গেলেন বলিউড অভিনেত্রী রানী মুখার্জি বাবা রাম মুখার্জি। শনিবার দিনগত রাত ৫টার দিকে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

    ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের সূত্রে জানা গেছে, হঠাৎ রক্তচাপ কমে যাওয়ায় রাম মুখার্জিকে ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভোর ৫টার দিকে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত বলে জানান।

    মৃত্যুকালে রাম মুখার্জির বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। বেশ কিছু দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন তিনি। স্ত্রী কৃষ্ণা মুখার্জি, মেয়ে রানী ও ছেলে রাজা মুখার্জিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

    রাম মুখার্জির স্ত্রী কৃষ্ণা মুখার্জি বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই শারীরিকভাবে অসুস্থ ছিলেন রাম। তার অসুস্থতা বেড়ে যাওয়ায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু চিকিৎসকেরা তাকে বাঁচাতে পারেননি।

    রাম মুখার্জি ভারতীয় বাংলা ও হিন্দি সিনেমার প্রবীণ পরিচালক, প্রযোজক ও চিত্রনাট্যকার ছিলেন। ভারতের মুম্বাইয়ে তিনি ফিল্মমালা নামের একটি স্টুডিও গড়ে তোলেন। রানী মুখার্জির অভিষেক চলচ্চিত্র ‘রাজা আয়ে কি বারাত’ তিনি প্রযোজনা করেছেন।

    তার উল্লেখযোগ্য বাংলা চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে রক্ত ধারা, তোমার রক্ত আমার সোহাগ, রক্তলেখা। এছাড়া হিন্দি সিনেমায় তিনি প্রথম সারির পরিচালক ও প্রযোজক। তার সিনেমায় অভিনয় করেছেন দীলিপ কুমার থেকে শুরু করে এ প্রজন্মের অনেক শিল্পী।

    বাস্তব জীবনে পারফেকশনের অস্তিত্ব নেই

    আমির খান। বলিউডের পারফেকশনিস্টখ্যাত অভিনেতা। সম্প্রতি তার অভিনীত ‘দঙ্গল’ ছবিটি বক্স অফিসে সাতশ কোটির রেকর্ড গড়েছে। পাশাপাশি কুস্তিগীর মহাবীর সিং চরিত্রে অভিনয় করে ফিল্মফেয়ারে সেরা অভিনেতার স্বীকৃতি পেয়েছেন তিনি। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে ছবিটি নিয়ে কথা বলেছেন তিনি-

    ‘দঙ্গল’ ছবিতে কাজ করতে আগ্রহী হয়েছিলেন কেন?

    একটা বড় ছবির পর একটা ছোট ছবি করা আমার জন্য আরামদায়ক। তাই ‘পিকে’ মুক্তির পর অন্যরকম একটা চিত্রনাট্যের অপেক্ষায় ছিলাম। তবে সংখ্যা নিয়ে চিন্তার দিকে আমি নেই। সৌভাগ্যবশত আমি যা করতে চাই তা করা থেকে কোনো কিছু আমাকে থামাতে পারেনি। আমি সবসময় স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে কাজ করে গেছি।

    ‘দঙ্গল’ ছবির দৃশ্যধারণের আগে আপনার রুটিন কেমন ছিল?

    প্রতিদিন আমরা দুই ঘণ্টা কুস্তির ট্রেনিং করতাম, এরপর ৩-৪ ঘণ্টা হরিয়ানার ভাষা ট্রেনিং করতাম। এরপর দুই ঘণ্টা ভারোত্তোলনের ট্রেনিং শেষ হতো।

    সেরা অভিনেতা হওয়ার পরও অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে না থাকার কারণ কী?

    অভিনয় জীবনের শুরু থেকেই অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠান নানাভাবে আমি এড়িয়ে চলেছি। কারণ আমি মনে করি যে, সংস্থা আমাকে অ্যাওয়ার্ড দিয়ে সম্মানিত করতে চায়, আমার মনেও সেই সংস্থার প্রতি শ্রদ্ধা থাকা জরুরি। এ অনুপাত সমান না হলে কোনো অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে আমার পক্ষে থাকা কষ্টকর। এসব কারণেই অনুপস্থিত থাকা।

    সবার কাছে আপনি পারফেকশনিস্ট, নিজের কাছে কী?

    সবার কাছে পারফেকশনিস্ট হলেও আমার বাস্তব জীবনে পারফেকশনের অস্তিত্ব নেই। আমার কাছে এটা ভুল টাইটেল। আমি যখন কোনো দৃশ্যে অভিনয় করি, তখন ‘হার্ট অব দ্য মোমেন্ট’ খোঁজার চেষ্টা করি। প্রত্যেকটি দৃশ্যে যদি সে ম্যাজিকটা পাই, আমার দিক থেকে ওই শট সম্পূর্ণ। কারণ আমি অভিনয়ের ব্যাপারে খুব প্যাশনেট। সুতরাং, আমাকে মি. প্যাশনেট ডাকা উচিত, মি. পারফেকশনিস্ট নয়।

    এ বছর আর কোন কোন ছবি ভালো লেগেছে?

    ‘সুলতান’ এবং ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ ছবি দুটো ভালো লেগেছে। ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ ছবিতে রনবীর ও আনুশকা শর্মার কাজ পছন্দ করেছি। গানগুলো চমৎকার হয়েছে।

    ভারতে মুক্তি পেল ট্রিপল এক্স, বাংলাদেশে ২০ জানুয়ারি

    দীপিকা পাড়ুকোন ও ভিন ডিজেল অভিনীত ছবি ট্রিপল এক্স আজ শনিবার মুক্তি পেয়েছে ভারতে। চলচ্চিত্রটির নির্মাতারা আশা করছেন এটি দর্শকদের নজর কাড়তে সক্ষম হবে।

    হলিউডে দীপিকার প্রথম ছবি ‘ট্রিপল এক্স: রিটার্ন অব জ্যান্ডার কেজ’। আর এ কারণে এটি দীপিকা ভক্তদের মাঝেও বেশ জনপ্রিয় হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। খবর কালের কণ্ঠ’র।

    আজ ১৪ জানুয়ারি শুধু ভারতে মুক্তি পেয়েছে হলিউডের ছবি ‘ট্রিপল এক্স: দ্য রিটার্ন অব জেন্ডার কেজ’। তবে পরবর্তীতে বিশ্বের অন্যান্য দেশে ছবিটি মুক্তি পাবে।

    ছবির প্রচারে বৃহস্পতিবারই দীপিকা পাড়ুকোনের সঙ্গে মুম্বাইয়ে উপস্থিত হয়েছেন হলিউড সুপারস্টার ভিন ডিজেল।

    এর আগে শুক্রবার ছবির প্রিমিয়ার শোয়ে দীপিকা আর ভিন ডিজেলের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বলিউডের নামকরা সেলিব্রিটিরা।

    ছবির প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন দীপিকা-ডিজেল। বৃহস্পতিবার সে প্রচারণার অংশ হিসেবে দীপিকার সঙ্গে তালে তাল মিলিয়ে ‘লুঙ্গি ডান্স’ করে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন মুম্বাইয়ের দর্শকদের। ছবির প্রচার সেরে শনিবারই দেশে ফিরে যাওয়ার কথা ভিন ডিজেলের।

    বাংলাদেশে ছবিটি মুক্তি পাবে আগামী ২০ জানুয়ারি। ঢাকার পান্থপথে বসুন্ধরা সিটির স্টার সিনেপ্লেক্সে মুক্তি পাচ্ছে এটি।

    বাবার সঙ্গে অভিনয়ে আগ্রহী আঁখি আলমগীর

    ছোটবেলায় বরেণ্য চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন পরিচালিত ১৯৮৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ভাত দে’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন মহানায়ক আলমগীরের সুযোগ্য উত্তরসূরী আঁখি আলমগীর। আঁখি তখন চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী এবং নায়ক হিসেবে আলমগীর তখন ১৬টি বছর পার করেছেন। কিন্তু বাবার আগেই আঁখি অভিনয় করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিলেন।

    বাংলাদেশ টেলিভিশনে রাত ৮টার খবরে যখন আলমগীর আঁখির জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের খবরটি শুনেন তখন আঁখিকে কাছে ডেকে খুব আদর করেন এবং আঁখি তার বাবাকে সেবারই জীবনে সবচেয়ে বেশি খুশি হতে দেখেছেন, সবচেয়ে বেশি আবেগাপ্লুত হতে দেখেছেন। কিন্তু তারপরও আঁখির আফসোস থেকে যায়। কারণ ‘ভাত দে’ চলচ্চিত্রে আঁখি নায়িকার ছোটবেলার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। যে কারণে তার বাবার সঙ্গে একই ফ্রেমে অভিনয় করার সুযোগ হয়নি। আঁখি তার মনের সুপ্ত বাসনার কথা বলতে গিয়ে বাবার সঙ্গে একই ফ্রেমে অভিনয় করার প্রবল ইচ্ছের কথা জানালেন।

    এ দিকে সম্প্রতি আঁখি আলমগীর আলাউদ্দিন আলীর সুরে শহীদুল্লাহ ফরায়েজীর কথায় একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। ২০ বছর পর আলাউদ্দিন আলীর সুরে গান গেয়েছেন আঁখি। আসছে বৈশাখে গানটি প্রকাশ পাবে। বিশ বছর আগে আলাউদ্দিন আলীর সুরে আগুনের সঙ্গে ছটকু আহমেদ পরিচালিত ‘সত্যের মৃত্যু নেই’ চলচ্চিত্রে গান গেয়েছিলেন।

    এ দিকে আগামীকাল আঁখি আলমগীরের জন্মদিন। তার জন্মদিন উদ্যাপনের মধ্য দিয়েই তার পরিবারে জন্মদিন উদযাপন শুরু হয়। বছরের শুরুতেই তার জন্মদিন থাকায় সবসময়ই আঁখির জন্মদিন বেশ আয়োজনের মধ্য দিয়েই সবসময় করা হয়ে থাকে। এবারের জন্মদিনে মিডিয়ার কিছু প্রিয় মানুষদের সঙ্গে নিয়ে সেলিব্রেট করার ইচ্ছে ছিল আঁখির । কিন্তু সেখান থেকেও এবার নিজে থেকে সবিনয়ে সরে দাঁড়ালেন আঁখি।

    আঁখি আলমগীর বলেন, ‘ইচ্ছে ছিল এবার কিছু প্রিয় মানুষদের সঙ্গে নিয়ে সেলিব্রেট করার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর করা হচ্ছে না। তবে এবারের জন্মদিনটি একেবারেই নিজের মতো করেই পরিবারের সঙ্গে উদযাপন করব। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন যেন আমি আমার অবস্থান থেকে মানবতার জন্য কাজ করে যেতে পারি। কারণ আমি মনেকরি শিল্পীর একসময় মৃত্যু হয়, কিন্তু মানবতার বা মনুষত্বের কোনো মৃত্যু নেই।’

    বিগত প্রায় ২০ বছর যাবৎ একই ধারাবাহিকতায় স্টেজ শো নিয়ে ভীষণ ব্যস্ত সময় পার করছেন আঁখি আলমগীর। আঁখি আলমগীর তার ১৯তম একক অ্যালবামের কাজও এগিয়ে নিচ্ছেন। এরই মধ্যে কবির বকুলের লেখা এবং শওকত আলী ইমনের সুরে ‘ফাল্গুনে কৃষ্ণচূড়া’ গানের কাজ শেষ করেছেন।