• ?????: আফ্রিকা

    নাইজেরিয়ায় মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ৫০

    নাইজেরিয়ায় একটি মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলায় কমপক্ষে ৫০ জন নিহত হয়েছেন। আদামাওয়া রাজ্যের মুবি শহরের এই হামলার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ জানিয়েছে, ফজরের নামাজে আসা মুসল্লিদের ওই জমায়েতে এই হামলা চালানো হয়েছে। খবর ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলিস্টারের।

    শহরে পুলিশের একজন মুখপাত্র ওসমান আবুবকর জানিয়েছে, এক যুবক মুসলিমদের ওই জমায়েতে ঢুকে বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। এতেই এই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।

    নিরাপত্তা বাহিনী এই হামলার জন্য বোকো হারাম দায়ী বলে ধারণা করছে। কেননা এই ধরনের হামলা সাধারণত এই সন্ত্রাসী গোষ্ঠীটি চালিয়ে থাকে।
    তবে এখনো পর্যন্ত কেউ এই হামলার দায় স্বীকার করেনি।

    বোর্নো রাজ্য যেখান থেকে বোকো হারামের উৎপত্তি সেখানেই এই গ্রুপটি বেশি হামলা চালিয়ে থাকে। যেসব এলাকায় বেশি জনসমাগম ঘটে সাধারণত এমন এলাকা হামলার বেছে নেয় বোকো হারাম।

    এর আগে গেলো গেলো সেপ্টেম্বরে বোর্নো রাজ্যে এক হামলায় ১৮ জন নিহত হয়েছিল।
    বোকো হারামের হামলায় দেশটিতে এ পর্যন্ত ২০ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছে। আরো প্রায় ২০ লাখ লোক ঘরবাড়ি ছেড়ে পালাতে বাধ্য হয়েছে।
    বোকো হারাম বোর্নো রাজ্যে বেলজিয়ামের সমপরিমাণ জায়গা নিয়ন্ত্রণ করছে।

    অবশেষে পদত্যাগ করলেন রবার্ট মুগাবে

    জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে পদত্যাগ করেছেন বলে দেশটির স্পিকার জ্যাকব মুদেন্দা জানিয়েছেন। ব্যক্তিগত ইচ্ছায় এক পত্রের মাধ্যমে মুগাবে পদত্যাগ করেছেন বলে রয়টার্স ও বিবিসি জানিয়েছে।

    দেশটির সংসদ সদস্যরা মুগাবের বিরুদ্ধে অভিশংসনের উদ্যোগ নিয়ে আলোচনা করছিলেন এর মধ্যেই বিস্ময়কর এই ঘোষণা এলো। গত সপ্তাহে সেনাবাহিনী ক্ষমতা দখল করে তাকে গৃহবন্দি করে। এরপরেও তিনি পদত্যাগে রাজি হননি।

    ১৯৮০ সালে জিম্বাবুয়ে স্বাধীন হবার পর থেকে তিনি দেশটির ক্ষমতায় রয়েছেন। ৩৭ বছর পর পদত্যাগ করলেন তিনি। বুধবার সেনাবাহিনী ক্ষমতা দখলের পর থেকেই চরম উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে প্রতিটি দিন যাচ্ছিলো জিম্বাবুয়ের। করণীয় নির্ধারণে গত রোববার বৈঠকে বসেন ক্ষমতাসীন জানু-পিএফ পার্টি।

    বৈঠকে রবার্ট মুগাবেকে দলীয় প্রধানের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়। তার স্থলাভিষিক্ত হন মুগাবের হাতে বহিষ্কৃত নেতা ও সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট এমারসন নাঙ্গাগওয়া। এসময় মুগাবের স্ত্রী গ্রেস মুগাবেকেও পার্টি থেকে বহিষ্কার করা হয়। তারপর প্রেসিডেন্টের পদ ছাড়তে মুগাবেকে গতকাল সোমবার দুপুর পর্যন্ত সময়সীমা বেধে দেয়া হয়েছিলো। তা না হলে তাকে অভিশংসনের মুখোমুখি হতে হবে বলেও এসময় জানিয়ে দেয়া হয়।

    এর পরপরই টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে মুগাবে পদত্যাগ করতে অস্বীকৃতি জানান। তিনি বলেন: ডিসেম্বরে ক্ষমতাসীন পার্টির কংগ্রেসের আগ পর্যন্ত ক্ষমতা ছাড়বেন না তিনি। বরং পদত্যাগের ঘোষণা দেয়ার বদলে উল্টো আসন্ন কংগ্রেসে নিজের জানু-পিএফ পার্টিকে নেতৃত্ব দেয়ার জিম্বাবুয়ে-রবার্ট মুগাবে-জিম্বাবুয়ের সেনাবাহিনীআকাঙ্ক্ষার কথা জানান এই গৃহবন্দী প্রেসিডেন্ট।

    নাইজেরিয়ায় বন্দুকধারীদের হামলায় নিহত ১০

    নাইজেরিয়ার পোর্ট হার র্কোট শহরের একটি মার্কেটে সোমবার বন্দুকধারীদের অতর্কিত হামলায় ১০জন নিহত হয়েছে। খবর এএফপি’র।

    মার্কেটের এক মাংস বিক্রেতার উদ্ধৃতি দিয়ে এএফপি জানায়, শহরের এমগবোসিমিরি এলাকার একটি মাংসের বাজারে বিকেল ৪টায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতদের বেশিরভাগই নারী।

    রিভার্স রাজ্য পুলিশ গুলিবর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে কতজন হতাহত হয়েছে তা জানাতে অস্বীকার করেছে।

    ভুল করে শরণার্থী শিবিরে হামলা, নিহত ৫০

    আবুজা, ১৮ জানুয়ারি- ঘটনাটি ঘটেছে নাইজেরিয়া ও ক্যামেরুনের সীমান্তবর্তী অঞ্চলে। সেখানে নাইজেরিয়ার সেনাবাহিনীর সাথে লড়াই চলছে ইসলামি জঙ্গি গোষ্ঠী বোকো হারামের। বোকো হারামের হামলার ভয়ে পালিয়ে দেশটির বোর্নো প্রদেশের উত্তরপূর্বের শহর র‍্যন-এ ঐ শিবিরে আশ্রয় নিয়েছিলেন বহু মানুষ। অন্যদিকে সরকারের কাছে তথ্য ছিলো ঐ এলাকায় জঙ্গিরা জড়ো হচ্ছে। এমন গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে বিমান বাহিনীকে আক্রমণের নির্দেশ দেয়া হয়েছিলো। সেনাবাহিনীর মুখপাত্র লাকি ইরাবো বলেছেন বোর্নো’র কোনো এক জায়গায় বোকো হারাম জঙ্গিরা জড়ো হচ্ছে বলে সকালে তার কাছে তথ্য আসে। তিনি বিমান বাহিনীকে সমস্যা সমাধানের নির্দেশ দেন। তারা বিমান আক্রমণ চালায় কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ভুল যায়গায় বিমান হামলা চালানো হয়। হতাহতের এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করে সবাইকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদু বুহারি। আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থা এমএসএফ বিপুল সংখ্যক হতাহতের বিষয় নিশ্চিত করেছে। তারা পার্শ্ববর্তী দেশে তাদের অন্যান্য দলকে প্রস্তুত রেখেছে সহায়তা বাড়ানোর জন্য। অন্তত ছয়জন রেডক্রস কর্মী নিহতের খবর জানিয়েছে সংস্থাটির মুখপাত্র আলেক্সান্দর মাতিযেভিক। তিনি বলেছেন, নিহত ছয়জন রেডক্রস সদস্য এবং আহত আরো ১৩ জন স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক র‍্যন শহরে এই সকালেই এসেছিলেন অন্তত ২৫ হাজার উদ্বাস্তুর খাবারের সংস্থান করতে। এই খাবার অন্তত পাঁচ সপ্তাহের জন্যে তাদের প্রয়োজন মেটাত। এই মুহুর্তে অন্যান্য ত্রাণ সংস্থার সহায়তায় জরুরি চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানিয়েছেন। ওদিকে দেশটির সেনাবাহিনী দুঃখ প্রকাশ করে বলেছে, ভুল বশত হামলায় বেসামরিক জনগণের এতটা ক্ষতি এর আগে কখনো হয়নি। দেশটির সরকারের মুখপাত্র জানিয়েছে সেখানকার প্রশাসন বোর্নো প্রদেশে সবধরনের সহায়তা অব্যাহত রাখবে।

    মার্কিন বিমান হামলায় সোমালিয়ার ২২ সৈন্য নিহত

    আফ্রিকার দেশ সোমালিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় ২২ সোমালিয় সৈন্য নিহত হয়েছে। ‘ভুল তথ্য’ নিয়ে হামলা করার কারণে এ ঘটনা ঘটেছে বলে সোমালিয়ার একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

    দেশটির গালমুদুগ প্রদেশের নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী ওসমান ঈসা জানিয়েছেন, তার প্রদেশে গতকাল (বুধবার) মার্কিন বিমান হামলায় এসব সেনা নিহত হয়েছে। প্রতিবেশী পুন্টল্যান্ড প্রদেশের অনুরোধে মার্কিন বাহিনী ওই হামলা চালিয়েছে বলে তিনি জানান।

    ঈসা বলেন, পুন্টল্যান্ডের পক্ষ থেকে মার্কিন বাহিনীকে উগ্র তাকফিরি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আশ-শাবাবের একদল জঙ্গির অবস্থান জানানো হয়। কিন্তু আসলে সেটি ছিল সোমালিয়ার একটি সেনা সমাবেশ।

    তবে ওই মন্ত্রীর এ দাবির ব্যাপারে ভিন্ন রকম ব্যাখ্যা দিয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়- পেন্টাগন ও সোমালিয়ার পুন্টল্যান্ড প্রদেশ।

    পেন্টাগনের মুখপাত্র ক্যাপ্টেন জেফ ডেভিস অবশ্য দাবি করেছেন, জঙ্গি বিরোধী অভিযানের সময় সোমালিয় সেনারা আশ-শাবাবের পক্ষ থেকে হামলার শিকার হলে ‘আত্মরক্ষামূলক বিমান হামলা’ চালায় মার্কিন বিমান বাহিনী। তিনি বলেন, ওই হামলায় ৯ আশ-শাবাব জঙ্গি নিহত হয়েছে।

    হামলায় সোমালিয়ার কোনো সৈন্য নিহত হয়েছে কিনা বা ভুল তথ্যের ওপর ভিত্তি করে হামলাটি চালানো হয়েছে কিনা পেন্টাগন তা খতিয়ে দেখছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

    এদিকে সোমালিয়ার পুন্টল্যান্ড পুলিশের একটি সূত্র সাংবাদিকদের জানিয়েছে, মার্কিন বিমান হামলায় এক ডজনের বেশি সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। তবে আশ-শাবাব দাবি করেছে, হামলার সময় ঘটনাস্থলে তাদের কোনো সদস্য ছিল না; ফলে তাদের কেউ হতাহত হয়নি।

    পুলিশ কর্মকর্তাসহ গণপ্রজাতন্ত্রী কঙ্গোতে ৩২ ব্যক্তি নিহত

    মধ্য আফ্রিকান দেশ গণপ্রজাতন্ত্রী কঙ্গোর রাজধানী কিনশাসায় নিরাপত্তা বাহিনী এবং বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সংঘর্ষে গত দু’দিনে ৩২ ব্যক্তি নিহত হয়েছে বলে দেশটির পুলিশ জানিয়েছে।

    প্রেসিডেন্ট জোসেফ কাবিলার বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানাতে এবং তার ক্ষমতার মেয়াদ বাড়ানোর প্রতিবাদে হাজার হাজার বিক্ষোভকারী রাস্তায় নেমে আসে। এ সময় সেখানে নিরাপত্তা বাহিনীর প্রচুর সদস্য মোতায়েন হওয়ায় এবং তারা বিক্ষোভকারীদের ওপর তাজা গুলি নিক্ষেপ করায় প্রতিবাদ মিছিলটি এক পর্যায়ে চরম সহিংসতায় রূপ নেয়।

    অজ্ঞাত দুর্বৃত্তদরা বেশ কিছু ব্যক্তিকে জীবন্ত পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠলে এবং কেউ কেউ থানাগুলোতে হামলা চালালে সংঘর্ষ পরবর্তী দিন পর্যন্ত ও অব্যাহত থাকে।

    এদিকে গত দু’দিনের সহিংসতায় ১০০ জনেরও বেশি ব্যক্তি নিহত হয়েছে বলে বিরোধী পক্ষগুলো জানিয়েছে। মৃতের সংখ্যা নিয়ে পুলিশের দেয়া তথ্য তারা প্রত্যাখ্যান করেছে।

    নিউইয়র্ক ভিত্তিক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বা এইচআরডাব্লিউ জানিয়েছে, দু’দিনের সহিংসতায় ৩৭ ব্যক্তি নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে ২০ জন সোমবার এবং ১৭ জন মঙ্গলবার নিহত হয়। এছাড়া, নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে ছয় জন পুলিশ কর্মকর্তাও রয়েছেন বলে সংস্থাটি জানিয়েছে।

    দ. আফ্রিকায় আতঙ্কে বাংলাদেশিরা

    দক্ষিণ আফ্রিকায় অভিবাসীদের ওপর অব্যাহত হামলার ঘটনায় বিদেশিদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে। নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন সেখানে থাকা বাংলাদেশিরাও। দেশটিতে গত কয়েকদিন ধরে অভিবাসী বিদ্বেষ ছড়িয়ে পড়েছে। হামলায় এ পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ৫ জন অভিবাসী। বিবিসি এক খবরে জানিয়েছে, সেখানে বিদেশিরা গিয়ে স্থানীয়দের কর্মক্ষেত্র দখল করছে- এমন ক্ষোভ থেকেই এই হামলার শুরু। এর মধ্যেই অনেক বিদেশির পরিচালিত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দোকানপাটে লুটপাট চালিয়েছে স্থানীয়রা। জানা গেছে, মূলত আফ্রিকান অভিবাসীদের ওপর স্থানীয়দের আক্রোশ থাকলেও, অন্য বিদেশিদের ওপরও হামলার ঘটনা ঘটছে। বিদেশি মালিকানার অনেক দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেও ঘটছে লুটপাটের ঘটনা। হামলার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে আটকও করেছে সেখানকার পুলিশ। দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশ পরিষদের সহসভাপতি মো. রেজাউল করীম খান ফারুক বিবিসিকে জানান, কয়েকজন বাংলাদেশির প্রতিষ্ঠানেও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। অন্যরাও আতঙ্কে রয়েছেন। তিনি বলেন, ‘শহরের বাইরে তো বটেই, অনেক শহর এলাকাতেও দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। বাংলাদেশ দূতাবাস থেকেও সবাইকে সাবধানে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।’ এদিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় বিদেশিদের ওপর হামলার ঘটনার প্রতিবাদে আগামী বৃহস্পতিবার গণমিছিল হতে যাচ্ছে দেশটির উপকূলীয় শহর ডারবানে। গত এক সপ্তাহে দেশটিতে বসবাসকারী অভিবাসীদের ওপর চলমান হামলা ও সহিংসতার প্রতিবাদে এই গণমিছিলে দক্ষিণ আফ্রিকার বিভিন্ন ধর্মীয় সম্প্রদায় ও সচেতন নাগরিক সমাজ অংশ নেবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অপরদিকে এসব হামলার প্রতিবাদে জিম্বাবুয়ে হারারেতে কয়েক হাজার বাসিন্দা দক্ষিণ আফ্রিকান দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ করেছে সম্প্রতি। দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রায়ই স্থানীয় উগ্রপন্থি কৃষ্ণাঙ্গরা অভিবাসীদের ওপর হামলা চালিয়ে থাকে। এর আগে ২০০৮ সালে একইভাবে এক সহিংসতায় প্রাণ হারান কমপক্ষে ৬০ জন অভিবাসী। সন্ত্রাসীদের হামলার মুখে ইতোমধ্যেই দুই হাজার বিদেশি নাগরিক ডারবানের একটি আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানিয়েছে একটি ত্রাণ সংস্থা। পাশাপাশি অনেক বিদেশি নাগরিকই প্রাণভয়ে তাদের ব্যবসা-বাণিজ্য, চাকরি-বাকরি ইত্যাদি ফেলে দেশে ফেরত যাচ্ছেন বলে জানা গেছে।

    নাইজেরিয়ার বোকো হারামের শহর থেকে ৫০০ শিশু নিখোঁজ

    নাইজেরিয়ায় একটি শহরের প্রায় ৫০০ শিশু নিখোঁজ রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাদের বয়স ১১ বছরের মধ্যে।
    আজ বুধবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় দামাসাক শহরে এ ঘটনা ঘটেছে। জঙ্গি সংগঠন বোকো হারামের কাছ থেকে শহরটি পুনরুদ্ধার করার পর সেখানকার এক সাবেক বাসিন্দা প্রায় ৫০০ জন শিশু নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগটি করেন।

    নাইজেরিয়ার বোর্নো রাজ্যের প্রধান শহর মাইদুগুরি থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত দামাসাক বাণিজ্যিক শহর হিসেবে পরিচিত। সম্প্রতি প্রতিবেশী নাইজার ও চাদের সেনারা বোকো হারামের কয়েক মাসের দখলের অবসান ঘটিয়ে শহরটি মুক্ত করে। শহর পুনরুদ্ধারের পর সেখানকার সাবেক এক বাসিন্দা বার্তা সংস্থা রয়টার্সের কাছে অভিযোগ করেন, বোকো হারামের জঙ্গিরা পালিয়ে যাওয়ার সময় ওই শিশুদের সঙ্গে নিয়ে গেছে। বোর্নো রাজ্যের উত্তরের প্রতিনিধিত্বকারী এক সিনেটর বলেন, শহরটির কয়েক শ শিশু নিখোঁজ রয়েছে।

    এর আগে শহরটি পুনরুদ্ধার করার এক সপ্তাহ পর সেখানকার একটি সেতুর নিচে ৭০টি লাশ পাওয়া যায়। উদ্ধার করা লাশ বেশির ভাগেরই গলা কাটা ছিল। নাইজেরিয়ায় একটি ইসলামি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ২০০৯ সাল থেকে উত্তর-পূর্বাঞ্চলে সশস্ত্র বিদ্রোহ শুরু করে বোকো হারাম। এক বছর আগে থেকে তারা বিভিন্ন এলাকা দখল করা শুরু করে। কিছুদিন ধরে প্রতিবেশী চাদ, নাইজার ও ক্যামেরনের সেনাবাহিনী নাইজেরিয়ার সেনাবাহিনীর সঙ্গে মিলে বোকো হারামের বিরুদ্ধে লড়াই করছে।

    কারে ৪৩৬টি মসজিদ ধ্বংস

    সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক(কার) দেশটিতে গত কয়েক মাসের জাতিগত সহিংসতায় ৪৩৬টি মসজিদের প্রায় সবক‘টি ধ্বংস হয়েছে। জাতিসংঘের মার্কিন রাষ্ট্রদূত সামান্থা পাওয়ার মঙ্গলবার এ কথা জানিয়েছেন।

    নিরাপত্তা পরিষদের প্রতিনিধি হিসেবে গত সপ্তাহে কার সফর শেষে এ মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘ দূত। ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং ফরাসি বাহিনী দেশটি ছেড়ে আসার পর সেখানে সম্ভাব্য নিরাপত্তাজনিত শূণ্যতা তৈরি হওয়ারও আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন সামান্থা।

    সামান্থা পাওয়ার বলেছেন, কারে ৪১৭টি মসজিদের প্রায় সবক’টি ধ্বংস করেছে দেশটির খ্রিস্টানরা। রাজধানী বানগুয়ি সফর করার পর তিনি সেখানকার মুসলিম জনগোষ্ঠীকে ‘ভয়ার্ত জনগণ’ হিসেবেও উল্লেখ করেছেন।

    ওই মার্কিন রাষ্ট্রদূত আরো জানিয়েছেন, মুসলিম সম্প্রদায়টি এতটা আতঙ্কিত যে তাদের নারীরা প্রসবের জন্য হাসপাতালে যাওয়ারও সাহস পাচ্ছে না। তারা নিজেদের বাড়িতেই সন্তান প্রসব করছে।

    ২০১৩ সালের ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া সহিংসতায় দেশটিতে কমপক্ষে ৫ হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন। ঘরবাড়ি হারিয়েছে আরো সাড়ে চার লাখ মানুষ। এদের বেশিরভাগই মুসলিম।

    Test

    This is a Test