• চলতি বছর বিশ্বে ৬৫ সাংবাদিক নিহত - ট্রাম্পের ঘোষণার বিরুদ্ধে রাশিয়ার হুঁশিয়ারি - বুধবার মার্কিন দূতাবাস ঘেরাও করবে হেফাজত - রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীনকে মধ্যস্থতার আহ্বান খালেদা জিয়ার - ‘জাহান্নামে যাওয়ার জন্য তৈরি হোন’, অ্যাটর্নি জেনারেলকে হুমকি - ক্ষমা না চাইলে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা: ফখরুল - এরশাদের পতন: পর্দার আড়ালে যা ঘটেছিল - ট্রাম্পের ঘোষণার বিরুদ্ধে তুরস্কে বিক্ষোভ - সাবেক রাষ্ট্রদূত জামানের খোঁজ মেলেনি, নানা রহস্য - বলিউডে পুরুষরা বেশি নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে: সোনাক্ষী - 'রসিক নির্বাচনে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে' - মৌলভীবাজারে ছাত্রলীগের দু'গ্রুপের সংর্ঘষে নিহত ২

    ?????: ইউরোপ

    চলতি বছর বিশ্বে ৬৫ সাংবাদিক নিহত

    চলতি বছর সারাবিশ্বে ৬৫ জন সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকর্মী নিহত হয়েছেন। রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস (আরএসএফ) মঙ্গলবার তাদের বার্ষিক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করে। খবর এএফপি’র। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিহতদের মধ্যে ৫০ জন পেশাগত রিপোর্টার।

    এ বছর সাংবাদিক হত্যার যে পরিসংখ্যান পাওয়া গেছে তা গত ১৪ বছরের মধ্যে সবচেয়ে কম বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। আগের চেয়ে সাংবাদিকরা ঝুঁকিপূর্ণ কাজ ও এলাকা এড়িয়ে চলেছেন বলেই মৃত্যুর এই হার কমে এসেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

    যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া এখনো সাংবাদিকদের জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক দেশ। আরএসএফ বলছে, সেখানে ১২ জন সংবাদকর্মী নিহত হয়েছেন। আর এর পরের অবস্থানে রয়েছে মেক্সিকো। যেখানে ১১ জন সাংবাদিককে হত্যা করা হয়েছে।

    তবে এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বিপজ্জনক দেশ হিসেবে উঠে এসেছে ফিলিপিন্সের নাম। যেখানে ২০১৬ সালে পাঁচজন সাংবাদিককে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।
    সাংবাদিকদের নিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুর্তেতের নেতিবাচক মন্তব্যের প্রেক্ষিতেই এমনটা ঘটেছে বলে জানাচ্ছে আরএসএফ।
    তবে এর আগের বছর অর্থাৎ ২০১৫ সালে দেশটিতে কোনো সাংবাদিক নিহত হয়নি।

    এদিকে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে চলতি বছর বাংলাদেশেও সাংবাদিক নিহতের ঘটনা ঘটেছে। দৈনিক সমকালের সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি আবদুল হাকিম শিমুল পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে নিহত হন।

    ট্রাম্পের ঘোষণার বিরুদ্ধে রাশিয়ার হুঁশিয়ারি

    ফিলিস্তিনের বাইতুল মোকাদ্দাস (জেরুজালেম) শহরকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার যে ঘোষণা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দিয়েছেন তার বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে রাশিয়া।

    রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার এক বিবৃতি প্রকাশ করে এ হুঁশিয়ারি দিয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বাইতুল মোকাদ্দাসকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মধ্যপ্রাচ্যে নতুন সংকটের জন্ম দিয়েছেন।

    রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, ফিলিস্তিন প্রসঙ্গে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ ও সাধারণ পরিষদের সবগুলো প্রস্তাবের প্রতি সমর্থন জানায় রাশিয়া। সেইসঙ্গে আরব দেশগুলোর শান্তি পরিকল্পনার প্রতিও রাশিয়ার সমর্থন রয়েছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

    রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, ট্রাম্প বাইতুল মোকাদ্দাসের ব্যাপারে যে ঘোষণা দিয়েছেন তা একটি একতরফা পদক্ষেপ এবং এই ঘোষণা শান্তির পক্ষে যাবে না।-পার্সটুডে

    জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবে বাইতুল মোকাদ্দাস বা জেরুজালেম শহরকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের হাতে অধিকৃত শহর হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। কাজেই আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত একটি দখলীকৃত শহরকে ইসরাইল নিজের রাজধানী হিসেবে ব্যবহার করতে পারে না বলে বিশ্বের স্বাধীনচেতা প্রতিটি মানুষ মনে করছেন।

    এ ছাড়া, এই শহরে রয়েছে মুসলমানদের প্রথম ক্বেবলা আল-আকসা মসজিদ। ফিলিস্তিনি জনগণ বলছেন, এই শহর ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডের অবিচ্ছেদ্য অংশ এবং অন্য কোনো দেশ বা জাতির পক্ষে এর মালিকানা দাবি করার বিন্দুমাত্র অধিকার নেই।

    ট্রাম্পের ঘোষণার বিরুদ্ধে তুরস্কে বিক্ষোভ

    ফিলিস্তিনের বায়তুল মুকাদ্দাস শহরকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার বিরুদ্ধে তুরস্কের রাজধানী আংকারা ও ইস্তাম্বুলে শত শত মানুষ বিক্ষোভ করেছেন। এ সময় তারা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এ ঘোষণার তীব্র নিন্দা ও সমালোচনা করেন।

    দুই শহরের বিক্ষোভই শান্তিপূর্ণ ছিল তবে বিক্ষুব্ধ জনতা কোথাও কোথাও কিছু কাগজে আগুন ধরিয়ে প্রতিবাদ করেন এবং ইহুদিবাদী ইসরাইলের পতাকা পোড়ান। বিক্ষোভকারীদের অনেকের হাতে তুরস্কের পতাকা ও নানা রকম ফেস্টুন দেখা যায় যাতে লেখা ছিল “ফিলিস্তিন মুক্ত করুন।”
    বিক্ষোভকারীরা তুরস্কে ইসরাইলি কন্স্যুলেট ভবনের দেয়ালেও ফিলিস্তিন মুক্ত করার দাবিতে নানা স্লোগান লিখেছেন। এছাড়া, তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মার্কিন ঘোষণার নিন্দা ও সমালোচনা করে দায়িত্বজ্ঞানহীন এ সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের আহ্বান জানিয়েছে।

    গতকাল (বধবার) মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সারা বিশ্বের বিরোধিতা ও প্রতিবাদ উপেক্ষা করে বায়তুল মুকাদ্দাসকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন। এছাড়া, তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস সরিয়ে বায়তুল মুকাদ্দাস শহরে নেয়ার ঘোষণাও দিয়েছেন তিনি। ট্রাম্পের এই ঘোষণা আন্তর্জাতিক আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।

    এসিড আক্রান্ত জাবেদ হোসাইনকে সাথে নিয়ে এসিড চার্টারে স্বাক্ষর করলেন মেয়র জন বিগস

    টাওয়ার হ্যামলেটসের মেয়র জন বিগস এসিড চার্টারকে সমর্থনের জন্য বারার সকল এসিড বিক্রেতার কাছে বিশেষ আবেদন জানিয়েছেন। ৬ ডিসে“র, বুধবার টাউন হলে এসিড আক্রান্ত জাবেদ হোসাইনকে সাথে নিয়ে এ সংক্রান্ত বিশেষ চার্টারে স্বাক্ষরকালে মেয়র এই আহধ্বান জানান।
    এসিড বিক্রয়কালে কী ধরনের সতর্কতা অবল“ন করতে হবে তা এই চাটারে উল্লেখ রয়েছে। টাওয়ার হ্যামলেটসের বেশকটি এসিড বিক্রেতা প্রতিষ্টান ইতিমধ্যে মেয়রের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে এতে স্বাক্ষর করেছেন।
    চার্টারে এসিড বিক্রেতাদের উদ্দেশ্যে যে সব নির্দেশনা রয়েছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য দিকগুলো হলো – অপ্রাপ্ত বয়স্ক এবং সন্দেহভাজনদের কাছে এসিড বিক্রি না করা – কাউন্সিলের উদ্যোগে এসিড বিক্রেতাদের জন্য বিশেষ ট্রেনিংয়ে অংশগ্রহন চার্টারে স্বাক্ষর করে মেয়র বলেন, এসিড আক্রমন বন্ধে কঠোর আইন দরকার। আর এজন্য ৫টি প্রস্তাব রেখে হোম সেক্রেটারী বরাবরে বিশেষ পিটিশন দাখিল করেছি। কিন্তু আইনে এখনো কোন পরিবর্তন না আসায় এব্যাপারে গনসচেতনতা বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছি। আমরা সবাইকে সাথে নিয়ে একে একটি সামাজিক আন্দোলন হিসাবে গড়ে তুলতে চাই। আজকের চার্টার এই উদ্যোগেরই অংশ।

    মেয়র বলেন, সমাজের অংশ হিসাবে এধরনের ভয়ংকর অপরাধ দমনে আমাদের সবারই দায়িত্ব রয়েছে। বিশেষ করে এসিড বিক্রেতারা যদি এব্যাপারে বিশেষ সতর্ক হন তাহলে এক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে। আর এজন্য আমরা তাদের সাথে পার্টনারশীপ গড়ে তুলতে চাচ্চিছ। যারা এতে স্বাক্ষর করবেন তাদের জন্য আমরা বিশেষ ট্রেনিংয়েরও ব্যবস্থা করেছি। আশা করছি সমাজের স্বার্থে তারা এগিয়ে আসবেন এবং কাউন্সিলকে এব্যাপারে সহযোগিতা করবেন।
    মেয়র বলেন, আমরা ঘটনা ঘটার জন্য অপেক্ষা করতে পারিনা। আগে ভাগেই আমাদেরকে ব্যবস্থা নিতে হবে। মেয়রের চার্টারে সমর্থনকারী এসিড আক্রান্ত জাবেদ হোসাইন তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, এব্যাপারে আমার অভিজ্ঞতা ভয়ংকর। আমার মতো আর কারো যাতে এধরনের অভিজ্ঞতা না হয় এজন্য এখনই ব্যবস্থা নিতে হবে। আমি মনে করি এসিড বিক্রেতাদের কিছুটা হলেও দায়িত্ব রয়েছে। চার্টারের মাধ্যমে তাদের সাথে যৌথভাবে কাজ করার জন্য মেয়র জন বিগসের উদ্যোগকে আমি সমর্থন জানাই। আমি মনে করি এটি একটি ভালো উদ্যোগ। এদিকে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল ইতিমধ্যে বারার বিভিন্ন শপ তথা এসিড বিক্রেতাদের কাছে লিখিত ভাবে ষ্ক্রওয়ান শট ড্রেইন ক্লিনারম্ব বিক্রির ক্ষেত্রে সতর্কতা অবল“ের আহবান জানিয়েছে। বিশেষ করে যাদের বয়স ২১ বছরের নীচে তাদের কাছে এটি বিক্রি না করার জন্য অনুরুধের পাশাপাশি সন্দেভাজনদের পরিচয় জানতে অনুরুধ করা হয়েছে।

    উল্লেখ্য যে মেয়র গত সেপ্টে“রে হোম সেক্রেটারীর কাছে লিখিত পিটিশনের মাধ্যমে ৫ দফা দাবী তুলে ধরেন। পিটিশনে মেয়র প্রস্তাবিত ৫ দফা দাবী হচ্চেছ- ১. যথাযথ কারন ছাড়া এসিড বহনকে ছুরি বহনের মতোই অপরাধ হিসাবে গণ্য করতে হবে, ২. এসিড ক্রয়ে বয়সসীমা নির্ধারন করতে হবে, ৩. ক্যাশ দিয়ে এসিড বিক্রি নিষিদ্ধ করতে হবে। ক্রেডিট এবং ডেবিট কার্ড দিয়ে এসিড বিক্রি করা হলে অপরাধীকে চি?িত করা সহজ হবে, ৪. এসিডকে কম করোসিভ সম্পন্ন এবং ঘন করতে নির্মাতাদের চাপ দিতে হবে যাতে করে সহজে স্প্রে করা না যায় এবং ৫. এসিড বিক্রেতাদের স্থানীয় কাউন্সিলে রেজিস্টার করতে হবে (২০১৫ সালে কনজারভেটিভ সরকার কতৃক বাতিলকৃত) এবং স্পট চেকের জন্য কাউন্সিলকে ফান্ড দিতে হবে।

    ৩ জনকে গুলি করে মেরে পুলিশ কর্মকর্তার আত্মহত্যা

    প্রেমের সম্পর্কে বিচ্ছেদের জেরে হতাশ এক পুলিশ কর্মকর্তা ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে তিন জনকে গুলি করে হত্যা করেছেন। ওই পুলিশ প্রেমিকের নাম অরনাউদ মার্টিন।

    স্থানীয় সময় শনিবার (১৮ নভেম্বর) রাতে এ ঘটনার পরে ও পুলিশ কর্মকর্তা আত্মহত্যা করেছেন।
    স্থানীয় প্রশাসনিক কর্মকর্তারা জানান, পুলিশ কর্মকর্তা অরনাউদ প্রেমিকার সঙ্গে গাড়িতে ঝগড়া করছিলেন। ঝগড়াল এক পর্যায়ে প্রেমিকার মাথায় গুলি করেন তিনি। এরপর গুলি করেন আরও দুই পথচারীকে। তার নির্বিচার গুলিতে আহত হন আরও তিন জন। আহতদের নিকটস্থ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

    প্যারিসের উত্তরাঞ্চলের সারসেলেস এলাকার এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা রবিবার (১৯ নভেম্বর) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে উঠে আসে।

    অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র জমা দিতে ২ সপ্তাহ সময় দিলো বৃটিশ পুলিশ

    অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি জমা দিতে দুই সপ্তাহ সময় দিয়েছে ওয়েলস ও ইংল্যান্ডের পুলিশ। এই সময়ের মধ্যে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র জমা দিলে কাউকে শাস্তির মুখে পড়তে হবে না। যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল ব্যালিস্টিক ইনটেলিজেন্স সার্ভিস (এনএবিআইএস) এই অস্ত্র জমা দেওয়ার কর্মসূচি সমন্বয় করছে। ১৩ থেকে ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত অস্ত্র জমা দেওয়া যাবে।

    এনএবিআইএস জানায়, অজ্ঞতার কারণে অনেকের কাছে অবৈধভাবে অস্ত্র রয়েছে। সংস্থার প্রধান জো চিল্টন জানান, অস্ত্র জমা দেওয়ার ফলে তা অপরাধে কাজে লাগানোর ঝুঁকি এড়ানো যাবে।

    এই সময়ের মধ্যে যে কেউ অস্ত্র জমা দিলে কোনও মামলার মুখোমুখি হতে হবে না। কিন্তু পরে যদি কোনও অপরাধের সঙ্গে এসব অস্ত্রের সংশ্লিষ্টতা থাকে তাহলে ওই অস্ত্রের মালিকদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

    ন্যাশনাল পুলিশ চিফ কাউন্সিলের হেলেন ম্যাকমিলান বলেন, অস্ত্র জমা দেওয়ার সময় কাউকে নাম বা ঠিকানা দিতে হবে না। ঝুঁকি এড়াতে আমরা অবৈধ অস্ত্র সংগ্রহ করতে চাই।

    তিনি আরও বলেন, হতে পারে তা একটি পিস্তল কিংবা অন্য কোনও অস্ত্র। ১০১ নম্বরে ফোন করে নিকটবর্তী পুলিশ স্টেশনে অস্ত্র জমা দিতে পারে। যে কয়টি আগ্নেয়াস্ত্র আমরা উদ্ধার করব তাতে করে জীবন বাঁচানোর সুযোগ তৈরি হবে। ফলে সঠিক কাজ করুন, আপনাদের অবৈধ অস্ত্র জমা দিন।

    যেসব অস্ত্র এই সময়ে জমা দেওয়া যাবে সেগুলোর মধ্যে রয়েছে এয়ার গান, রাইফেল, শটগান ও পিস্তল। এই অস্ত্র জমা দেওয়া সপ্তাহের লক্ষ্য হচ্ছে, দুর্ঘটনাবশত যেসব মানুষের অস্ত্র রয়েছে সেগুলো উদ্ধার করা।

    এর আগে ২০১৪ সালেও এরকম উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল ওয়েলস ও ইংল্যান্ডে। ওই সময় প্রায় ৬ হাজার অস্ত্র জমা পড়েছিল।

    অস্ত্র জমা দেওয়া সপ্তাহ সফল করতে স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড সামাজিক মাধ্যমে প্রচারণা শুরু করেছে। মেট্রোপলিটন পুলিশের কর্মকর্তা জিম স্টকলি জানান, অবৈধ অস্ত্র রাখার অভিযোগে পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের শাস্তি হতে পারে। যদি এসব অস্ত্র দিয়ে অপরাধ ঘটানোর প্রমাণ পাওয়া যায় তাহলে কারাদণ্ডের মেয়াদ আরও বাড়তে পারে।

    যুক্তরাজ্যের পরিসংখ্যান কার্যালয়ের তথ্যমতে, ২০১৭ সালের জুন পর্যন্ত আগ্নেয়াস্ত্র সংশ্লিষ্ট অপরাধের সংখ্যা ২৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

    ফের যুক্তরাষ্ট্রে কাউন্সিলর হলেন সিলেটের তাহসিনা

    যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির হেলডন নগর থেকে আবারো স্থানীয় সরকারের কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন সিলেটের তাহসিনা আহমেদ।
    গত মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে মধ্যবর্তী নির্বাচন হয়। এই নির্বাচনে তিনি আবারো কাউন্সিলর নির্বাচিত হন।
    বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তাহসিনা আহমেদ হেলডন নগর থেকে স্থানীয় সরকারের কাউন্সিলর হিসেবে প্রথম দফায় ২০১৪ সালে নির্বাচিত হয়েছিলেন।
    এবার দ্বিতীয় দফায় কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে পুনরায় দায়িত্বগ্রহণ করেছেন।
    তাহসিনার পৈত্রিক বাড়ি সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার লক্ষ্মীপাশা গ্রামে। তার বাবার নাম আমিন আহমেদ ও মা দিলশান আহমেদ।
    দ্বিতীয়বারের মতো কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার পর তাহসিনা আহমেদ এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, মানুষের সেবা করার মানসিকতা থেকেই তিনি যুক্তরাষ্ট্রের হেলডনে কাউন্সিলর নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন। দ্বিতীয়বারের মতো কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ায় দায়িত্ব আরও বেড়ে গেছে বলে মনে করেন তাহসিনা।
    যুক্তরাষ্ট্রের মূলধারার রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হয়ে কাজের পরিধি আরও বাড়ানোর আশাবাদ ব্যক্ত করেন তাহসিনা।

    থেরেসা মে কে সরাতে একমত ৪০ এমপি

    ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের প্রতি অনাস্থা দিতে একমত হয়েছেন যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে তাঁরই দল কনজারভেটিভ পার্টির ৪০ সদস্য। সানডে টাইমস সংবাদপত্র রোববার এক খবরে এ তথ্য জানায়।

    ব্রিটিশ পার্লামেন্টে কনজারভেটিভ পার্টির আর আট সদস্য যদি এই অনাস্থা জানানো এমপিদের দলে যোগ দেন, তাহলে দলের নতুন নেতা নির্বাচনের ব্যাপারে তাঁরা সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন। এতে করে একদিকে যেমন থেরেসা মে সরে যেতে বাধ্য হবেন, অন্যদিকে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি অন্য একজনকে প্রধানমন্ত্রীর পদে বসাতে পারবে।

    ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বিচ্ছেদ প্রক্রিয়া (ব্রেক্সিট) এবং একাধিক মন্ত্রীর কেলেঙ্কারির ঘটনায় থেরেসা মের সরকার বেকায়দায় রয়েছে। এর আগে দলের সম্মেলনে দেওয়া বক্তব্যের কারণে নেতৃত্ব হাতছাড়া হতে বসেছিল মের।

    জেনে নিন সামরিক শক্তিতে কতটা শক্তিশালী রাশিয়া

    বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে নিজেদের সামরিক বাহিনীকে শক্তিশালী করতে ব্যস্ত পৃথিবীর উন্নত দেশগুলো। ধারাবাহিকভাবে চলছে তাদের শক্তি প্রদর্শনের মহড়া।

    সামরিক শক্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের পরই রাশিয়ার অবস্থান। বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম দেশ এটি। পাশাপাশি পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি খনিজ সম্পদ রয়েছে এই রাশিয়াতেই। এছাড়া বিশ্বের বৃহত্তম অস্ত্রবিক্রেতা ও নির্মাতা রাষ্ট্র রাশিয়া।
    তবে আর দেরি না করে চলুন জেনে নেই সামরিক শক্তিতে কতটা শক্তিশালী রাশিয়া।

    সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে যাওয়ার পর ১৯৯২ সালে ৭ মে তৎকালীন রাশিয়া ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট বরিস ইয়েলৎসিন সোভিয়েত আর্ম ফোর্সের সদস্য ও সরঞ্জাম নিয়ে প্রতিষ্ঠা করেন রাশিয়ান সামরিক বাহিনী। সোভিয়েত ইউনিয়ন পতনের আগে এটি ছিল বিশ্বের অত্যন্ত শক্তিশালী সামরিক বাহিনী। যা সেই সময় সৈন্য এবং পারমাণবিক অস্ত্র সংখ্যার দিক থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে এগিয়ে ছিল।

    স্থল বাহিনী, বিমানবাহিনী, নৌবাহিনী, স্ট্র্যাজিক রকেট ফোর্স, বিশেষ বাহিনী এবং এয়ারবোম ট্রুপস নিয়ে রাশিয়া ফেডারেশনের সামরিক বাহিনী গঠিত।

    রাশিয়া

    নিয়মিত সেনা সদস্য- ১০,৪০,০০০,
    রিজার্ভ আর্মি- ২০,৩৫,০০০
    আধা-সামরিক বাহিনীতে রয়েছে- ৪,৪৯,০০০
    সাঁজোয়া ট্যাংক- ২২,৭১০টি
    বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ- ১টি
    উভচর যুদ্ধজাহাজ- ১৫টি
    ক্রুজার- ৫টি
    ডেস্ট্রয়ার যুদ্ধজাহাজ- ১৪টি
    ফ্রিগেট- ৫টি
    করভিট যুদ্ধজাহাজ- ৭০টি
    নিউক্লিয়ার সাবমেরিন- ৩৩টি
    সাবমেরিন- ১৭টি
    যুদ্ধবিমান- ১,২৬৪টি
    বোমারু বিমান- ১৯৫টি
    জঙ্গিবিমান- ১,২৬৭টি
    সাঁজোয়া হেলিকপ্টার- ১,৬৫৫টি
    পরমাণু অস্ত্র- ১২ হাজার

    রাশিয়া বিশ্বের অনেক দেশে অস্ত্র রপ্তানি করে থাকে। দুনিয়ার সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত এবং জনপ্রিয় অটোমেটিক রাইফেল একে-৪৭-এর নির্মাতা ও ডিজাইনার রাশিয়ার লেফটেন্যান্ট জেনারেল মিখাইল কালাশনিকভ। এ পর্যন্ত প্রায় ১০ কোটিরও অধিক এই অস্ত্র বিক্রি হয়েছে এবং বিশ্বের প্রায় ৫০টিরও বেশি দেশের সামরিক বাহিনীতে এটি ব্যবহৃত হচ্ছে।

    ইংল্যান্ডের নিউক্যাসলে সড়ক দুর্ঘটনায় শিশুসহ নিহত ২

    ইংল্যান্ডের নিউক্যাসলে সড়ক দুর্ঘটনায় আট বছর বয়সী এক শিশুসহ দুইজন নিহত হয়েছে। দেশটির ডিপার্টমেন্ট অব ফ্যামিলি অ্যান্ড কমিউনিটি সার্ভিসেসের তত্ত্বাবধানে থাকাবস্থায় ওই দুর্ঘটনা ঘটে। খবর ডেইলি টেলিগ্রাফের।

    প্রতিষ্ঠানটির ডে-কেয়ার কর্মী র‌্যাচেল মার্টিন ক্যামেরুন পার্কের কাছে গাড়ি পার্ক করলে শিশুটি দরজা খুলে দৌড় দেয়। র‌্যাচেলও এসময় শিশুটির পেছনে দৌড় দেয় পরে একটি ট্রাক দুইজনকে চাপা দেয়।

    ট্রাফিক এবং হাইওয়ে টহল পুলিশের ভারপ্রাপ্ত সহকারী কমিশনার স্টুয়ার্ট স্মিথ বলেছেন, তারা গাড়ি থেকে বের হলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। তিনি বলেন, ক্যামেরুন পার্কের কাছে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।
    তিনি আরো বলেন, আমরা ধারণা করছি ওই নারী গাড়ি পার্ক করার পর শিশুটি দৌড় দেয়। পরে ওই নারীও শিশুটির পেছনে দৌড় দেয়। এসময় একটি ট্রাক তাদের ধাক্কা দেয়।

    ডিপার্টমেন্ট অব ফ্যামিলি অ্যান্ড কমিউনিটি সার্ভিসেসের একজন মুখপাত্র বলেছেন, যেকোনো শিশুর মৃত্যুই বেদনাদায়ক। আমরা ওই শিশু ও র‌্যাচেলের মৃত্যুতে মর্মাহত।

    তবে পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে উল্লেখ করে এ বিষয়ে আরো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানায় তারা। ওই ট্রাকের ৫৭ বছর বয়সী ড্রাইভারকে মানসিক আঘাতজনিত চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। একই সঙ্গে বাধ্যতামূলক রক্ত এবং প্রশ্রাব পরীক্ষার জন্য তাকে জন হান্টার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।